বাল্য বিবাহ ও যৌন হয়রানী রোধে ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে

Cox-BRAC-Pic_1.jpg

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
বাল্য বিবাহ ও যৌন হয়রানী রোধে ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম মজুমদার। তিনি বলেন, স্বাভাবিক পন্থায় বাল্য বিবাহ ও যৌন হয়রানী বন্ধ হবেনা। এ জন্য প্রয়োজন জনসম্পৃক্ততামূলক কর্মসুচি ও ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টি। শিক্ষার্থীদের পাঠ্যপুস্তকের বাইরে নীতি নৈতিকতা শিক্ষা দিতে হবে। সন্তানদের তদারকি বাড়াতে হবে।
মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) সকালে জেলা নির্বাচন অফিসের সম্মেলন কক্ষে ‘শিক্ষক ও কমিউনিটি ওয়াচগ্রুপের সাথে অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা’য় মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম মজুমদার প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন। এ সময় তিনি ১০৪ নং কল সেন্টার থেকে যৌন হয়রানীসহ যাবতীয় ব্যাপারে তথ্য পাওয়া বলে জানান।
জেন্ডার জাস্টিস অ্যান্ড ডাইভারসিটি বিভাগের উপদেষ্টা শামীমা পারভীনের সভাপতিত্বে সভায় মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে বাল্য বিবাহ ও যৌন হয়রানী বিষয়ে বিভিন্ন ডকুমেন্ট উপস্থাপন করেন মেজনিন কর্মসুচির সিনিয়র স্পেশালিস্ট ঝর্ণা দাশ। শহরের বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমীর ছাত্রী আশরাফি আজাদের কোরআন তেলাওয়াতে শুরু হওয়া সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ব্র্যাকের জেলা প্রতিনিধি অজিত নন্দী।
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন- ‘যৌন হয়রানী নির্মূলকরণ নেটওয়ার্কের আহবায়ক প্রবীন সাংবাদিক ফজলুল কাদের চৌধুরী ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের নারী সহায়তা কেন্দ্রের প্রকল্প ব্যবস্থাপক রাফিয়া আকতার।
পুলিশ প্রশাসনের পক্ষে প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত থেকে নারী নির্যাতন ও যৌন হয়রানীর বিষয়ে মামলার বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন- কক্সবাজার সদর মডেল থানার পুলিশ উপপরিদর্শক (এসআই) মানস বড়–য়া।
স্টুডেন্ট ওয়াচগ্রুপের অর্জন ও করণীয় বিষয়ে বক্তব্য দেন- কলাতলী উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মিনু আরা। শিক্ষক পর্যায়ে অর্জন ও করণীয় প্রসঙ্গে বিভিন্ন দিকের উপর আলোচনা অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন- বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমীর প্রধান শিক্ষক ছৈয়দ করিম, কলাতলীয় উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুফিজুল ইসলাম, ঈদগাহ আদর্শ শিক্ষা নিকেতনের প্রধান শিক্ষক একেএম আলমগীর ও সিনিয়র শিক্ষক নুরুল আমিন হেলালী।

Top