প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে হ্নীলা ৭নং ওয়ার্ড আ.লীগের প্রতিবাদ

protibad_1.jpg

গত ২৫ নভেম্বর কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত দৈনিক দেশবিদেশ ও আজ বিভিন্ন অনলাইনে উখিয়া-টেকনাফের উন্নয়নের রূপকার জনপ্রিয় সাংসদ আলহাজ¦ আবদুর রহমান বদি মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে স্ব-গৌরবে বীরের বেশে উখিয়া-টেকনাফে আগমণ উপলক্ষ্যে হ্নীলা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে রঙ্গীখালী রাস্তার মাথায় একটি তোরণ নির্মাণ করা হয়। এতে কথিত জামায়াত-বিএনপির গুটিকয়েক নেতার কু-পরামর্শে রঙ্গিখালী মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের নির্মাণকৃত তোরণের উপর আওয়ামীলীগের ব্যনার ছিড়ে ফেলে তদস্থলে মাদ্রাসার ব্যানার তুলে দেয়। ঘটনাটি জানাজানি হলে তৎক্ষনাত জেলা আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক এইচএম ইউনুছ বাঙালী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আহমদ, হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ও চেয়ারম্যান আলহাজ¦ এইচ.কে আনোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিকদারকে অবহিত করা হয়। ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক বশির আহমদ জানান, তারা স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের নিয়ে এমপি বদিকে বরণ করতে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেওয়ার পথে হোয়াইক্যং অতিক্রম করার পর মাদ্রাসার অধ্যক্ষের নেতৃত্বে তোরণ থেকে ব্যানার ছিড়ে তাদের ব্যানার দিয়ে অতি উৎসাহী হয়ে জামায়াত-শিবিরের প্রেতাত্মা পরিকল্পিতভাবে আওয়ামীলীগকে ঘায়েল করতে এই হীন ঘটনাটি ঘটায়। পরে মাদ্রাসার কতিপয় শিক্ষক ও অধ্যক্ষ পরদিন স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে সাংবাদিক ভাইদের ভুল তথ্য দিয়ে উল্টো আওয়ামীলীগ নেতাকর্মী ও স্থানীয় মেম্বার মিলে তাদের উপর হামলা করেছে বলে মিথ্যাচার করে সংবাদ প্রকাশ করে। যা একজন শিশুও বিশ্বাস করবে না। তারা একটি কুচক্রী মহলের ইশারায় স্থানীয় ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগকে জনগণের মাঝে বিভ্রান্তি ও এমপি মহোদয়কে ভুল বুঝিয়ে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। এরপর এ ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে গতকাল মাদ্রাসার কচিকাচা শিক্ষার্থীদের নিয়ে নাম সর্বস্ব মানববন্ধন করে। এই মানববন্ধনের ব্যানারে কে হামলা করেছে, কারা করেছে কোন নামও উল্লেখ নাই এবং মানববন্ধনে কোন শিক্ষক ও কর্মচারী অংশগ্রহণ করেন নাই। লোকদেখানো অপপ্রচারের নিমিত্তে এ ধরণের মানববন্ধন শুভ ফল বয়ে আনবে না বলে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ। তাদেরকে এ ধরণের অপপ্রচার ও বিদ্বেষমূলক সংবাদ প্রকাশ থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করা হচ্ছে। অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবে। পরিশেষে এ ধরণের সংবাদে কাউকে বিভ্রান্ত না হতে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

প্রতিবাদকারী
৭নং ওয়ার্ড আ.লীগের পক্ষে
যুগ্ম সম্পাদক- বশির আহমদ, মাঈন উদ্দিন।
উপজেলা যুবলীগ সদস্য- হাসান আলী পিন্টু।
সাংগঠনিক সম্পাদক- মীর কাশেম, মমতাজ আহমদ।
সদস্য- নুর মোহাম্মদ, কামাল উদ্দিন প্রমূখ।

Top