পেকুয়ায় মারধরে গৃহবধু আহত

ahoto_1.jpg

 মো: ফারুক , পেকুয়া:

পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নে মারধরে মানসিকভাবে ভারসাম্য হারালো হানিফা বেগম (২৫) নামের এক গৃহবধূ। তিনি একই ইউনিয়নের মগঘোনা পাড়া এলাকার মোঃ তৈয়বের স্ত্রী। হানিফা বেগমের মা হামিদা বেগম জানান, ছাগলে ধান খাওয়া অজুহাতে গত শনিবার ৫নভেম্বর সকালে আমার মেয়ের উপর হামলা চালায় প্রতিবেশী সিরাজুদৌল্লাহ ও তার পরিবারের সদস্যরা। এতে মারধরে গুরুতর জখম হয় আমার মেয়ে। পরে অপর প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। কিন্তু তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে চমেকে প্রেরণ করা হয়। পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচও ডাঃ মুজিবুর রহমান বলেন, গৃহবধূ মানসিক সমস্যা প্রকট আকারে ধারণ করায় চমেকে প্রেরণ করা হয়েছে। পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ জিয়া মোঃ মোস্তাফিজ ভূঁইয়া বলেন, এব্যাপারে কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা হবে।পেকুয়ায় মারধরে মানসিকভাবে ভারসাম্য হারালো গৃহবধূ ইমরান হোসাইম, পেকুয়া পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নে মারধরে মানসিকভাবে ভারসাম্য হারালো হানিফা বেগম (২৫) নামের এক গৃহবধূ। তিনি একই ইউনিয়নের মগঘোনা পাড়া এলাকার মোঃ তৈয়বের স্ত্রী। হানিফা বেগমের মা হামিদা বেগম জানান, ছাগলে ধান খাওয়া অজুহাতে গত শনিবার ৫নভেম্বর সকালে আমার মেয়ের উপর হামলা চালায় প্রতিবেশী সিরাজুদৌল্লাহ ও তার পরিবারের সদস্যরা। এতে মারধরে গুরুতর জখম হয় আমার মেয়ে। পরে অপর প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। কিন্তু তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে চমেকে প্রেরণ করা হয়। পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচও ডাঃ মুজিবুর রহমান বলেন, গৃহবধূ মানসিক সমস্যা প্রকট আকারে ধারণ করায় চমেকে প্রেরণ করা হয়েছে। পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ জিয়া মোঃ মোস্তাফিজ ভূঁইয়া বলেন, এব্যাপারে কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা হবে।

 

Top