পেকুয়ায় জেলে ‘নুরুল কাদেরের’ খোঁজ নেই ২২দিন

Jele-Abul-Kalam_1.jpg

মুহাম্মদ হাসেম ,পেকুয়া :

পেকুয়ায় জেলে নুরুল কাদের (৩৭) এর খোঁজ নেই গত ২২দিন ধরে। জীবিকার তাগিদে ফিশিং বোট নিয়ে সাগরে মাছ ধরতে যায় ২২দিন আগে নুরুল কাদেরসহ অসংখ্য জেলে। ওই সময় থেকে নুরুল কাদের নিখোঁজ রয়েছে। জলোচ্ছাসের পুর্বাভাসে সাগর খুবই উত্তাল ছিল। সে সময় শতশত ফিশিং বোট গভীর সাগরে অবস্থান করছিল। সম্প্রতি সাগরে সৃষ্ট ঘুর্নিঝড় ও বৈরি আবহাওয়ায় কক্সবাজার জেলাসহ উপকুলবর্তী জেলা সমুহের বিপুল ফিশিং বোট তীরে ফিরেনি। এদিকে নুরুল কাদের গত ২২দিন আগে ফিশিং বোট নিয়ে সাগরে মাছ ধরতে যায়। সে সময় থেকে অদ্যবদি পর্যন্ত তিনি নিখোঁজ রয়েছে। জানা গেছে নুরুল কাদেরসহ ১২-১৫জনের জেলেরা কক্সবাজার শহরের নাজিরারটেক এলাকার কামাল বহদ্দারের মালিকানাধিন ফিশিং বোট নিয়ে গভীর সাগরে যান। এদের মধ্যে কারো সন্ধ্যান নেই বলে নুরুল কাদেরের পরিবার দাবি করেছেন। সুত্রে জানিয়েছেন গত ২৫দিন আগে নুরুল কাদের ফিশিং বোটে মাছ ধরতে নিজ বাড়ি মগনামা থেকে কক্সবাজার শহরে যান। কক্সবাজারের নাজিরারটেক মোকাম থেকে গত ২২দিন আগে তারা ফিশিং বোট নিয়ে গভীর সাগরে যান। ওই জেলে নিখোঁজ থাকার পর তার পরিবার তাকে ব্যাপকভাবে খোঁজাখুঁজি করছে। ওই সময় থেকে পরিবারে চলছে শোকের মাতাম। পরিবারের সদস্যরা জানান সংসারে আয়ের একমাত্র উপর্জনক্ষম ব্যক্তি জেলে নুরুল কাদের। তার বাড়ি পেকুয়া উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের নুইন্যারপাড়া এলাকায়। তিনি ওই এলাকার মৃত.ছৈয়দনুরের ছেলে। সাগরে মাছ আহরন করে সংসার চলে তার। গত দেড় যুগ ধরে জেলে পেশার সাথে জড়িত তিনি। জীবিকার সন্ধ্যানে ওইদিন সাগরে মাছ ধরতে যান। কিন্তু এ পর্যন্ত তার কোন সন্ধ্যান মিলছেনা। তিনি জীবিত আছেন নাকি সাগরে তার সলিল সমাধি হয়েছে সেটি বিধতায় বলতে পারেন। তবে একবুক আশা নিয়ে পরিবার তার অপেক্ষায় প্রহর গুনছে প্রতিনিয়ত। মগনামা জেলে পাড়ার লোকজন জানায় নুরুল কাদের ২০১১সালে বিয়ে করেন। তার স্ত্রীর নাম শেফা সোলতানা। বাপের বাড়ি পাশর্^বর্তী দ্বিপ উপজেলা কুতুবদিয়ায়। শেফা সোলতানা জানায় স্বামী নিখোঁজ থাকার পর থেকে সংসারে চুলা জ¦লছেনা। আমাদের দু’টি সন্তান আছে। ইশফার বয়স হয়েছে চার বছর। সে বাবার জন্য কাঁদছে। সাগরের দিকে দৃষ্টি গেলে স্বামীর স্মৃতিগুলো ভেসে উঠে মনে। আমার শাশুরবাড়ির লোকজন কক্সবাজারে গিয়ে বহদ্দারের সাথে দেখা করেছে। তিনি বলেছেন কিছু বোট মায়ানমারের তীরে ভেসে গেছে। বোটগুলি কার ওখানে কোন ব্যক্তি জীবিত আছেন সেটি অনুমান করা যাচ্ছেনা। নুরুল কাদেরের ভাই আব্দুল মালেক জানায় বিষয়টি বোট মালিক সমিতিকে জানানো হয়েছে। তারা নিখোঁজ জেলে ও ফিশিং বোটগুলোর বিষয় নিয়ে জেলা প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়েছেন বলে আমাদেরকে জানিয়েছেন। মগনামা ইউপির সদস্য নুর মুহাম্মদ বদ জানায় নুরুল কাদের নিখোঁজ হওয়ার পর পরিবারে রজনী কাটছেনা। ছেলেটা অত্যন্ত ভদ্র ছিল। তার চিন্তায় পরিবার নয় শুধু আমাদের এলাকায় শোকের মাতাম চলছে। মগনামা ইউপির চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম জানায় বিষয়টি আমাকেও অবহিত করেছেন তার পরিবার। সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমে মায়ানমারের কুলে যেসব বোট আটকা পড়েছে সেখানে কোন জেলে আছে সেগুলো নিয়ে আগাতে হবে। আমি ডিসি স্যারের সহযোগিতা কামনা করেছি নিখোঁজ জেলে নুরুল কাদেরের ব্যাপারে।

Top