ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিজয়ে বিশ্বে কি পরিবর্তন ঘটবে?

DONALD-TRUMP-2.jpg

বিবিসি :

আমেরিকার ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যয়বহুল আর আলোচিত নির্বাচন শেষে দেশটির ৪৫তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আমেরিকা ও বিশ্বের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়ে তার আলাদা ধরণের দৃষ্টিভঙ্গি নিজের দল রিপাবলিকান পার্টি, আমেরিকা এবং বিশ্বে আলোচনার জন্ম দিয়েছে।

নির্বাচনী প্রচারণার সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প যেসব ঘোষণা দিয়েছেন, প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর সেগুলো যদি তিনি বাস্তবায়ন করেন, তাহলে কয়েকটি ক্ষেত্রে বিশ্বের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্কের পরিবর্তন ঘটাতে পারে। তার প্রধান পাঁচটি এখানে উল্লেখ করা হলো।

মুক্ত বাণিজ্য

নির্বাচনের আগে যেভাবে ঘোষণা দিয়েছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প যদি সেভাবেই তার বাণিজ্য নীতি অনুসরণ করেন, তাহলে এখন যেভাবে আমেরিকা বিশ্বের সঙ্গে ব্যবসা বাণিজ্য করে, তা পাল্টে যাবে। তিনি বেশ কয়েকটি মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন। যার মধ্যে কানাডা আর মেক্সিকোর সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্যের বিষয়গুলোও রয়েছে। এমনকি বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা থেকেও আমেরিকাকে প্রত্যাহারের ঘোষণা তিনি দিয়ে রেখেছেন।

জলবায়ু পরিবর্তন

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি নির্বাচিত হলে প্যারিস জলবায়ু পরিবর্তন চুক্তিটি বাতিল করবেন। এমনকি জাতিসংঘের জলবায়ু তহবিলে যুক্তরাষ্ট্রের সব অনুদান দেয়াও বন্ধ করবেন। কোন একক দেশ এই চুক্তিটি হয়তো বাতিল করতে পারে না। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র যদি নিজেদের সরিয়ে নেয়, তাহলে তা প্যারিস চুক্তির বাস্তবায়ন অসম্ভব করে তুলবে।

সীমান্ত বন্ধ

মেক্সিকোর সঙ্গে একটি সীমান্ত দেয়াল তুলে দেয়া এবং আমেরিকা থেকে ১ কোটি ১০ লাখের বেশি অবৈধ অভিবাসীকে বের করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও তিনি পরে বলেছেন, আগে লাখ লাখ অপরাধীকে বের করে দেয়া হবে। পরে অন্যদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। কয়েকটি দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রের প্রবেশ নিষিদ্ধেরও তিনি পক্ষে। যদিও নির্বাচনী প্রচারণার সময় দেয়া এসব ঘোষণা যদি তিনি বাস্তবায়ন করতেও চান, তা তার জন্য কঠিন হবে।

নেটো

নর্থ আটলান্টিক ট্রিটি অর্গানাইজেশন বা নেটোর সমালোচনা করে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, এটি এখন মেয়াদোর্তীণ হয়ে গেছে। নেটোর সহযোগী দেশগুলো থেকে নেটোতে যে অর্থ আসার কথা, সেটি আসছে না। বরং তারা আমেরিকার সামরিক সুবিধা ভোগ করছে। তাই তাদের উপযুক্ত অর্থ নেটোতে দিতে হবে, না হলে আমেরিকান সেনা সরিয়ে নেয়া উচিত বলেও তিনি মনে করেন। কিন্তু সেটি করা হলে আমেরিকার ষাট বছরের দীর্ঘ এই সামরিক জোটে বড় পরিবর্তন আসবে।

রাশিয়া

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের প্রশংসা করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক আরো সহজ করতে পারবেন বলে তিনি ঘোষণা দিয়েছেন। কিন্তু ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দুই দেশের অবস্থান কি হবে, তা পরিষ্কার করেননি। কিন্তু তার কথায় পরিষ্কার, রাশিয়া যদি যুক্তিসঙ্গত আচরণ করে, তাহলে তার ভূমিকা বারাক ওবামা বা হিলারি ক্লিনটনের চেয়ে ভালো হবে।

Top