টেকনাফে ফের ৩ জেলেকে ধরে নিয়ে গেছে বিজিপি

bgp.jpg

বিজিপি - ফাইল ছবি

শাহীনশাহ, টেকনাফ (কক্সবাজার) :

ফের টেকনাফের নাফ নদী থেকে তিন জন বাংলাদেশী জেলেকে ধরে নিয়ে গেছে মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)। ফলে আতংকে রয়েছে সীমান্তবর্তী জেলেরা। শুক্রবার (১১ নভেম্বর) রাতে টেকনাফের ২ নং স্লুইচ গেইট সংলগ্ন নাফ নদীর পূর্ব-দক্ষিন বাংলাদেশ সীমানা থেকে ৩ জনকে ধরে নিয়ে গেছে। এরা হচ্ছে টেকনাফ পৌরসভার উত্তর জালিয়া পাড়ার আবদুল মালেকের পুত্র আবদুর রহমান (৩২), চৌধুরী পাড়ার ছৈয়দ হোসেনের পুত্র মোঃ ইউনুছ (৩৫) ও আবদুল আজিজের পুত্র মোঃ খালেক (২৮)। এনিয়ে এক সপ্তাহে ৮ জেলেকে নিয়ে গেল। এসময় তাদের মাছ শিকারের জাল ও নৌকাসহ নিয়ে যায় বিজিপি।

এব্যাপারে ১২ নভেম্বর বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ টেকনাফ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক বরাবরে অভিযোগ করেছে আবদুর রহমানের পিতা আবদুল মালেক।

এদিকে মিয়ানমারের বিজিপি কর্তৃক বাংলাদেশী জেলেদের আটক করে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় জেলেদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। আটকের ভয়ে অনেকে মাছ শিকার বন্ধ করে দিয়েছে।

অপর দিকে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) কর্তৃক জেলেদের মৌখিক ভাবে সতর্ক করে দিয়েছে। যাতে কোন ভাবেই মিয়ানমারের সীমান্তে মাছ শিকারে না যায় এবং সাবধানতা অবলম্বন করতে।

এব্যাপারে টেকনাফ ব্যাটালিয়নের উপ-পরিচালক মেজর আবু রাসেল ছিদ্দিকী জানান, গত শুক্রবার তিন জনকে ধরে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে দোভাষীর মাধ্যমে মিয়ানমারের বিজিপি কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে। এছাড়া ই-মেইলেও বার্তা পাঠানো হয়েছে। তাছাড়া বাংলাদেশী জেলেদেরকে মিয়ানমার সীমান্তের কাছাকাছি মাছ শিকারে না যেতে বার বার সতর্ক করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ৯ অক্টোবর মিয়ানমারে দূর্বৃত্ত্ব কর্তৃক বিজিপি ক্যাম্পে হামলার ঘটনায় সেদেশে অস্থিতিশীল অবস্থা বিরাজ করছে। মিয়ানমারের সীমান্তে হেলিকপ্টার চক্কর দিতে দেখা যাচ্ছে।

তাছাড়া ২২ দিন ধরে মাছ ধরা নিষিদ্ধ থাকায় জেলেরা মাছ শিকারে যেতে পারেনি। নিষিদ্ধ মেয়াদ শেষ হওয়ার পর জেলেরা মাছ শিকারে গেলে গত ৯ নভেম্বর ৬ জেলেকে নৌকা ও জালসহ বাংলাদেশ জল সীমানা থেকে বিজিপি আটক করে নিয়ে যায়। এর মধ্যে সেন্টমার্টিন ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতিও একজন। ফলে জেলেদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।

Top