চকরিয়ায় শিক্ষকের বাড়িতে মল নিক্ষেপ ও গুলি বর্ষন, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

CHAKARIA-COXSBAZAR-PIC-14-11-16.jpg

আবদুল মজিদ, চকরিয়া:
চকরিয়ায় দীর্ঘদিনের চলাচল রাস্তা দখল নিয়ে এলাকার সর্বজন শ্রদ্ধেয় শিক্ষক ও পীর ছাহেবের বাড়ি লক্ষ্য করে গুলি বর্ষণ ও মল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। এনিয়ে এলাকার শতশত বিক্ষুদ্ধ জনতা প্রশাসনের কাছে ঘটনায় জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও শাস্তির দাবী জানিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে।

সোমবার (১৪নভেম্বর) ভোর রাতে উপজেলার পূর্ববড়ভেওলা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের ফজলুর রহমান সিকদারপাড়ায় সর্বজন শ্রদ্ধেয় মরহুম মাস্টার মাওলানা এনামুল হকের বাড়িতে ও পীরে কামেল এহছানুল উলুম মাদরাসার সামনে ঘটে এ ঘটনা।

বিক্ষোভকালে স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মরহুম মাস্টার মাওলানা এনামুল হক ও পীরে কামেল শাহসুপী মাওলানা এহছানুল হক নামে এলাকায় দু’জন সর্বজন শ্রদ্ধেয় মুরব্বী রয়েছেন। মরহুম এনাম হুজুরের বড় ছেলে চট্টগ্রাম সরকারী মুসলিম হাইস্কুলের সিনিয়র সহকারী মাওলানা শিব্বির আহমদ ওসমানী তাহার বাড়ি চলাচলের জন্য বিএস খতিয়ান নং ১০৩৮, দাগ নং ৮৬২৪ এর রেজিস্ট্রাট দলিল নং ৩৫৪২/০৩ ও ৩১১৮/০২ মূলে কবির আহমদ সওদাগর ও নজরুল ইসলামের কাছ থেকে ৬শতক জমি ক্রয় করেন। তন্মধ্যে দখলে রয়েছেন মাত্র ১শতক জমি। কিন্তু স্থানীয় চিহ্নিত ভুমিদস্যু মৃত নুরুল আবছার সিকদারের পুত্র মিজানুর রহমান টিপু, লুৎফুর রহমান রাসেল, তাসিকুর রহমান পার্সেল ও জিল্লুর রহমানের নেতৃত্বে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী এনে কাটা তারের বেড়া দিয়ে চলাচল পথের ৫শতক জমি অবৈধভাবে দখলে নেওয়ার পরও অবশিষ্ট ১শতক জমি দখল নিতে শিক্ষক পরিবারকে হুমকি প্রদান করে। এনিয়ে ভুমিদস্যুদের বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এছাড়াও মাওলানা শিব্বির আহমদ ওসমানীর পক্ষে ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালতের ডিক্রি ও স্থানীয়দের শালিসী রোয়েদাদ রয়েছে। সর্বশেষ গতকাল ১৪নভেম্বর ভোররাতে অভিযুক্ত ভুমিদস্যুরা মরহুম এনাম হুজুরের বাড়ির দরজায় মল নিক্ষেপ করে ও এহছানুল হক পীর ছাহেবের মাদরাসার সামনে গুলি বর্ষণ করে উল্লাসে মেতে উঠে। এঘটনার বিষয়টি সর্বত্রে ছড়িয়ে পড়লে এলাকার শতশত বিক্ষুদ্ধ জনতা ভুমিদস্যু সন্ত্রাসী ও ভাড়াটিয়াদের গ্রেফতার এবং শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। বিক্ষোভে বক্তব্য রাখেন পূর্ববড়ভেওলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সন্ত্রাস নাশকতা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি গোলাম কাদের সওদাগর, ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান বেলাল উদ্দিন, ৮নং ওয়ার্ডের মেম্বার মিছবাহ উদ্দিন সহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। তারা জানিয়েছেন, সন্ত্রাসী দখলবাজরা মাদরাসার ওঠানে নিয়মিত জোয়া খেলার আসর বসায়, নানান অপরাধে লিপ্ত ও দু:চরিত্রবান।

পীরে কামেল মাওলানা এহছানুল হক বলেন, ভুমিদস্যু সন্ত্রাসীদের কার্যক্রমে তিনি সহ এলাকার মানুষ অতিষ্ট। তিনি অশ্রুজলে মহান আল্লাহর কাছে এর বিচার প্রাথনা করেন।

স্থানীয় পূর্ববড়ভেওলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বলেন, ঘটনাটি অত্যন্ত নিন্দনীয় ও দু:খজনক। শিক্ষক পরিবারের চলাচল পথ ভুমিদস্যুরা দখলে নেওয়ার চেষ্টা করছে বলে সত্যতা শিকার করেন।

চকরিয়া থানার ওসি (তদন্ত) কামরুল আজম বলেন, এলাকার প্রবীণ শিক্ষক ও আলেম পরিবারে মল নিক্ষেপ ও গলি বর্ষনের বিষয়টি জানার পর আমি সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত করে সত্যতা পেয়েছি। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পুলিশের পক্ষ থেকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

চকরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাফর আলম বলেন, দুজন সর্বজন শ্রদ্ধেয় শিক্ষক ও পীর সাহেবের বাড়িতে হামলা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায়না। ঘটনায় যেই জড়িত থাকুক তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে উর্ধ্বতন প্রশাসনে জানানো হয়েছে।

Top