চকরিয়ায় প্রবাসীর স্ত্রী লাপাত্তা , থানায় অভিযোগ

polahon14-09-2015-449x330_1.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া :

চকরিয়ায় এক ওমান প্রবাসীর স্ত্রী স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও মালামাল নিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমিয়েছে। এঘটনায় হতভাড়া স্বামী বাদী হয়ে স্ত্রী সহ ৫জনের নাম উল্লেখ করে থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করেছে। উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের জিদ্দাবাজার এলাকায় ২১নভেম্বর সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ঘটেছে এ ঘটনাটি।

অভিযোগে জানা গেছে, চলতি সনের ২৩সেপ্টেম্বর লক্ষ্যারচর জিদ্দাবাজার এলাকার মৃত রশিদ আহমদের পুত্র ওমান প্রবাসী হারুনুর রশিদের সাথে ইসলামি শরীয়াহ মতে বিয়ে হয় সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের নুতন বাজার আশ্রয়কেন্দ্র পাড়ার ফিরোজ আহমদ সওদাগরের মেয়ে রাফি আক্তারের। প্রায় দু’মাস সুন্দরভাবে চলে তাদের সংসার। হঠাৎ গত কয়েকদিন ধরে স্বামী পরিবারের সদস্যদের সাথে অসৌজ্যমূলক কথাবার্তা বলা শুরু করে স্ত্রী রাফি আক্তার।

বিষয়টি স্ত্রীর পিতৃলয়ের সদস্যদের অবগত করার পরও কোন কর্ণপাত করেনি বলে জানায় স্বামী হারুন। সর্বশেষ গত ২১নভেম্বর সকাল সাড়ে ১১টার দিকে স্ত্রী রাফি স্বামী পরিবারের (বোনের রক্ষিতসহ) ৯ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ১লাখ টাকা সহ ৬লক্ষাধিক টাকার মালামাল নিয়ে পরিবারের সদস্যদের অগোচরে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমিয়েছে।

স্বামী তার শ^াশুর বাড়ি, আত্মীয় স্বজন সহ সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে খোজাখুজির পর কোথাও না পেয়ে ওইদিনই বিকেলেই থানায় ৫জনের বিরুদ্ধে লিখিত এজাহার দায়ের করেন হতভাগা প্রবাসী স্বামী হারুনুর রশিদ। এতে অভিযুক্ত করা হয়েছে শ^াশুর ফিরোজ আহমদ সওদাগর, শ^াশুড়ী খতিজা বেগম, স্ত্রী রাফি আক্তার, শ্যালক মিজানুর রহমান ও মিরাজকে।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জহিরুল ইসলাম খান বলেন, অভিযোগটি পাওয়ার পর তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণে থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাজেদুল ইসলামকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি প্রমাণিত হলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।#

Top