চকরিয়ায় নতুন সেতু নির্মাণকাজে ধীরগতি

Chakaria-setu.jpg

নড়েবড়ে  বিকল্প সেতু দিয়ে চলাচল

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়নে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ এলজিইডির অর্থায়নে হারবাং স্টেশন থেকে বাজার সড়কে নতুন দুটি সেতু নির্মাণ কাজে ধীরগতির অভিযোগ উঠেছে। প্রায় চার মাস আগে ঠিকাদারী প্রতিষ্টান সেতু নির্মাণ কাজ শুরু করলেও স্থানীয় জনগনের চলাচলের জন্য টেকসই বিকল্প সেতু নির্মাণ করে না দেয়ায় বর্তমানে বাঁেশর একটি নড়েবড়ে বিকল্প সাঁেকা দিয়ে ঝুঁিকর মধ্যে চলাচল করছে এলাকার জনসাধারণ। এ অবস্থার কারনে ইউনিয়নের স্কুল,কলেজ মাদরাসা পড়–য়া শতশত শিক্ষার্থীসহ হাজারো মানুষ প্রতিদিন চরম দুর্ভোগে রয়েছেন।

স্থানীয় হারবাং ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) কক্সবাজার জেলা কমিটির সংগঠক রফিকুল আহসান বুলবুল বলেন, পহেলা নভেম্বর থেকে সারাদেশে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। হারবাং ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ে স্থানীয় প্রশাসন এবছর জেএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র চালু করেছে। ফলে পরীক্ষা শুরুর দিন থেকে আশপাশের এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ পরীক্ষার্থী বাঁেশর সাকোঁ দিয়ে পরীক্ষা হেেল আসতে গিয়ে ঝুঁিকর মধ্যে পড়েছে। একইভাবে চলাচল করতে গিয়ে গত চারমাস ধরে চরম দুর্ভোগে রয়েছে ইউনিয়নের স্কুল, কলেজ মাদরাসা পড়–য়া শিক্ষার্থীসহ হাজারো মানুষ। তিনি বলেন, জনগনের স্বাভাবিক চলাচল অব্যাহত রাখতে একটি টেকসই বিকল্প সেতু নির্মাণ না করে ঠিকাদারী প্রতিষ্টান সড়কে বহমান দুটি পুরাতন সেতু ভেঙ্গে নতুন করে নির্মাণ কাজ শুরু করেছে। এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলীর জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

জানতে চাইলে চকরিয়া উপজেলা প্রকৌশলী মো.আমিন উল্লাহ বলেন, নতুন সেতু নির্মাণ কাজ শুরুর আগে ঠিকাদারী প্রতিষ্টান জনগনের চলাচলের জন্য একটি বিকল্প বাঁেশর সেতু নির্মাণ করেছিলেন। কিন্তু দীর্ঘসময় হওয়ায় বাঁেশর সাকোঁটি একটু নড়েবড়ে হয়েছে। তবে শিক্ষার্থীসহ জনসাধারণ যাতে স্বাভাবিকভাবে চলাচল করতে পারে সেইজন্য সহসা বাশেঁর সাকোঁটি মেরামতের জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্টানকে নির্দেশ দেওয়া হবে। #

Top