চকরিয়ায় দিনদুপুরে মেম্বারকে ছুরিকাঘাত করে টাকা ছিনতাই

chintai_1.jpg

এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া :

চকরিয়ায় দিনদুপুরে গতিরোধ করে এক ইউপি মেম্বারকে ছুরিকাঘাতের পর নগদ এক লাখ ২০ হাজার টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রোববার বেলা ১১টার দিকে ওই ইউপি মেম্বার টাকা নিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে উপজেলার বেতুয়াবাজার চৌমুহনি এলাকার অনুশীলন একাডেমী স্কুলের কাছে এ ছিনতাইয়ের শিকার হন। গুরুতর আহত ওই ইউপি মেম্বারকে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আক্রান্ত ইউপি মেম্বার উপজেলার পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়নের ৪নম্বর ওয়ার্ডের নির্বাচিত সদস্য এবং তার বাড়ি ওই ওয়ার্ডের চরপাড়া গ্রামে।

আক্রান্ত ইউপি মেম্বার নুরুল আলম জানান, গতকাল রোববার বেলা ১১টার দিকে চকরিয়া পৌরসভার মগবাজার এলাকায় বসবাসরত নিকট আত্মীয় জানে আলমের ছেলে আনোয়ার হোসেনের কাছ থেকে হাওলাত নেয়া ১লাখ ২০ হাজার টাকা নিয়ে সিএনজি গাড়িতে করে বাড়ি ফিরছিলেন। ওইসময় তিনি মাতামুহুরী নদী পার হয়ে বেতুয়া বাজার চৌমুহনি এলাকায় গাড়ি থেকে নেমে হেটে বাড়ি যাচ্ছিলেন।

ইউপি মেম্বার নুরুল আলম অভিযোগ করেছেন, বেতুয়া বাজার চৌমুহনি থেকে কিছুদুর সামনে যাওয়ার পর স্থানীয় অনুশীলন একাডেমী স্কুলের কাছে পৌঁছালে সেখানে আগে থেকে উৎপেতে ৭-৮জনের অস্ত্রধারী যুবক তার গতিরোধ করে বুকে ও ডানহাতে ছুরিকাঘাতের পর তাকে মাটিতে ফেলে কোমড়ে থাকা টাকা গুলো নিয়ে চম্পট দেয়। ঘটনার পর পর স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাকে ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে।

ইউপি মেম্বার দাবি করেন, ঘটনার সময় ৮জন যুবক চোরা ও লোহার রড হাতে তার গতিরোধ করলেও তিনি ঘটনাস্থলে দুইজনকে সনাক্ত করতে পেরেছেন। তাঁরা হলেন, পুববড় ভেওলা ইউনিয়নের দক্ষিন চরপাড়া গ্রামের ছৈয়দ আহমদের ছেলে বাদশা মিয়া ও আনিছপাড়া গ্রামের ইউনুছ ফকিরের ছেলে মোহাম্মদ এস্তফা। এ ঘটনায় তিনি বাদি হয়ে থানায় মামলা করছেন বলে জানিয়েছেন আক্রান্ত ইউপি মেম্বার নুরুল আলম।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো.কামরুল আজম বলেন, ইউপি মেম্বারকে ছুরিকাঘাত করে টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় থানায় কেউ অভিযোগ দেয়নি। তবে অভিযোগ পেলে এব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। #

Top