‘গণহত্যা বন্ধ করে সুচিকে কাড়গড়ায় দাঁড় করাতে হবে’

news-pic_1.jpg

এহসান আল-কুতুবী, চট্টগ্রাম থেকে:

জাতীয় ছাত্র সমাজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার মানববন্ধন কর্মসূচীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় পার্টির যুগ্ন মহা সচিব গোলাম মুহাম্মদ রাজু বলেন, মিয়ানমারের কথিত নোবেল জয়ী কুখ্যাত ডাইনি অং সান সুচি তার দেশে রোহিঙ্গা মুসলিম জনগোষ্ঠীকে হত্যা করে বিশ্বের কাছে বাহ বাহ নিতে চাচ্ছেন। পৃথিবীর ইতিহাসে কোন অত্যাচারীর ক্ষমতা দীর্ঘস্থায়ী হয়না। আপনিও সে সময়ের অপেক্ষায় থাকেন। যাদের খুশি করতে এ হত্যাযজ্ঞ চালানো হচ্ছে, তারাই টেনে টেনে ক্ষমতা থেকে নামাবে।

তিনি আরো বলেন, বার্মার মজলুম রোহিঙ্গা মুসলমানের কান্নায় পৃথিবীর আকাশ ভারি হয়ে ওঠছে। মুসলিম নারী-পুরুষ ও শিশুরা বাঁচাও বাঁচাও বলে আর্তচিৎকার করছে। মায়ানমারের ডাইনি সরকার তাদের ওপর নির্যাতনের স্টিম রোলার চালাচ্ছে। হত্যা করছে অসংখ্য নিষ্পাপ শিশু, যুবক, বৃদ্ধাদের। ধর্ষণ করে কলঙ্কিত করছে অসংখ্য মা-বোনদের। বিধবা করছে হাজারো নারীদের।

অবিলম্বে এ গণহত্যা বন্ধে জরুরী পদক্ষেপ গ্রহণ করে এ মানবতা বিরোধী অপরাধের জন্য সুচিকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

মিয়ানমারে নিরহ মুসলিম জনগোষ্ঠীর উপর সুচি সরকারের লেলিয়ে দেওয়া বাহিনীর গণহত্যা ও নির্যাতন, নিপীড়নের প্রতিবাদে শনিবার জাতীয় ছাত্র সমাজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যাল শাখার আয়োজনে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

সংগঠনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আহবায়ক আব্দুর রহমান রোহানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব নকিবুল ইসলাম নিলয়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করেন জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন মহাসচিব গোলাম মুহাম্মদ রাজু। বিশেষে অতিথির বক্তব্য রাখেন , জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক ও যুব সংহতির সদস্য সচিব ফখরুল আহসান শাহজাদা, কেন্দ্রীয় নেতা হেলাল উদ্দিন, জাতীয় পার্টির যুগ্ন ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক আবু যায়েদ আল মাহমুদ মাখন সরকার।

জাতীয় ছাত্র সমাজের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি সুলতান জিসান উদ্দিন প্রধান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র যুগ্ন আহবায়ক সাওগাতুল ইসলাম হিমেল, কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি জিয়াউর রহমান মোড়েল, জিয়াউর রহমান জয়, শাহ আনোয়ারুল আলম অনু, শামীম হাসান, আলমগীর হোসেন, জুলফিকার, আখতার, রিপন মন্ডল, আল আমীন, টুটুল, আসাদ, সোহেল, সাহেব আলী সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ। পরে রাজু চত্বর থেকে একটি মিছিল শাহবাগ চত্বরে গিয়ে সুচির কুশপুত্তলিকা দাহের মাধ্যমে শেষ হয়।

Top