খুরুশকুলের ’কিংখান সোহেল’ – আতংকে সাধারণ মানুষ

king-khan-shohel-khuruskul-coxsbazar.jpg

বিশেষ প্রতিবেদক :

কক্সবাজার সদরের খুরুশকুলে তেতৈয়ায় ’কিংখান সোহেল’র  আবির্ভাব ঘটেছে । তার প্রকাশ্যে অস্ত্রবাজির ঘটনায় স্থানীয় জনসাধারণের মধ্যে চরম আতংক বিরাজ করছে। এসব আগ্নেয়াস্ত্র ও অপরাধীদের দমনে জরুরী ভিত্তিতে অভিযান জোরদার করা দরকার বলে সচেতন মহল মনে করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় জনসাধারণ জানায়, খুরুশকুল তৈতেয়া সওদাগর পাড়া এলাকার মো: ইসহাকের পুত্র সোহেল (২২) ও তার লালিত (কিং খান) বাহিনীর ৭/৮ জন সন্ত্রাসী এলাকায় বীরদর্পে দিনদুপুরে প্রকাশ্যে গুলিবর্ষণের শব্দে এলাকায় আতংক সৃষ্টি করছে। এতে হাট-বাজারসহ রাস্তা-ঘাটে আসা লোকজন বাড়ি ফিরতে ও চলাফেরা করতে চরম আতংকে পড়ে যায়।

তথ্যানুসন্ধানে বেরিয়ে আসে বর্তমানে কিং খান সোহেল বাহিনী এলাকার কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিকে টাকার মাধ্যমে ম্যানেজ করে এসব অস্ত্রবাজি করে নিরাপদ আস্তানা হিসেবে গড়ে তুলেছে। প্রায় সময় এলাকায় ও পাহাড়ে তারা আধিপত্য বিস্তার এবং প্রশাসনের অভিযানের হানায় একে অপরকে দোষারোপ করেও আসছে বলে জানা গেছে।

এরই জেরধরে সোহেল বাহিনী ভাড়াটে হিসেবে ব্যবহৃত সন্ত্রাসীরা এখন প্রকাশ্যে অস্ত্রবাজির ঘটনা ঘটাচ্ছে বলে স্থানীয় জনসাধারণ অভিযোগ করছেন। এরই জেরধরে প্রকাশ্যে কিং খান সোহেল অস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে তার পেইসবুক পেইজ সোহেল কক্সে- পোস্ট দেয়। ‘আমি তৈতেয়ার কিংখান, আমাকে কেউ কিছু করতে পারবেনা। আমার কথায় তৈতেয়ার লোকজন উঠে আর বসে।’

স্থানীয় জনসাধারণ জানান, সওদাগরপাড়ার কিংখান সোহেল ও তার লালিত সহযোগীদের অবিলম্বে গ্রেফতার না করলে যেকোন মুর্হুতে জানমালের ক্ষতি হতে পারে।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার সদর মডেল থানার অপারেশন অফিসার আবদু রহিম জানান, কিছুদিন আগেও একই এলাকা থেকে শীর্ষ কয়েকজন ডাকাতকে আটক করা হয়েছে। কিংখান অস্ত্রবাজ সোহেল ও তার বাহিনীকে আটকের চেষ্টা চলছে।

Top