ক্ষমতার জন্য সশস্ত্র বাহিনীকে কখনও ব্যবহার করিনি: প্রধানমন্ত্রী

hasinna-11_1.jpg

ক্ষমতা দখল করার জন্য সশস্ত্র বাহিনীকে হাতিয়ার হিসেবে কখনো ব্যবহার করেননি বলে বন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার বিকালে ঢাকা সেনানিবাসের সেনাকুঞ্জে সশস্ত্র বাহিনী দিবসের অনুষ্ঠানে বক্তৃতায় একথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা (আওয়ামী লীগ) গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি। সশস্ত্র বাহিনীকে আমরা কখনও ক্ষমতা দখলের হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করিনি বা বারবার ক্যু করে সশস্ত্র বাহিনীর শত শত অফিসার বা সৈনিকের হত্যাকাণ্ড আমরা ঘটাইনি। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বের দরবারে আমাদের দেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। অনেকেই আমাকে প্রশ্ন করেন-আপনারা যে এতো উন্নয়ন করছেন ম্যাজিকটা কী। আমার উত্তর, এখানে কোনো ম্যাজিক নেই। রয়েছে আন্তরিকতা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা যখনই সরকারে আসি আমাদের আন্তরিকতা থাকে কীভাবে দেশকে আরও উন্নত করবো। সমৃদ্ধশালী করবো। তিনি বলেন, পরনির্ভরশীলতা না। নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে মাথা উঁচু করে আমরা চলবো সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি।

এর আগে সকালে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে ঢাকা সেনানিবাসে সশস্ত্র বিভাগে আয়োজিত খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও উত্তরাধিকারীদের মাঝে পরিচয়পত্র বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী। এই কার্ড দিয়ে তারা বিনা ভাড়ায় বিমান, ফেরি ও বাস ভ্রমণের সুযোগ পাবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরুর সাত মাস পর ১৯৭১ সালের ২১ নভেম্বর সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনী সমন্বিত বাহিনী গড়ে পাকিস্তানি বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধ শুরু করে। স্বাধীনতার পর থেকে দিনটি সশস্ত্র বাহিনী দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।

সিলেটে পদাতিক ডিভিশন ও নয়টি ইউনিট আগামী ২৩ ডিসেম্বর উদ্বোধন করতে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। নৌবাহিনীর আধুনিকায়নে দুটি সাবমেরিন সংযোজনের কথা উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা, যা চীন থেকে অচিরেই আসছে। নৌবাহিনীকে ত্রিমাত্রিক বাহিনী হিসাবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, নৌবাহিনী যেন আকাশেও চলতে পারে, সাগরেও চলতে পারে এবং সাগরের তলদেশেও চলতে পারে, সেই সুরক্ষা আমরা করে দিয়েছি। সাম্প্রতিককালে বিমান বাহিনীতে এফ-৭ বিজি যুদ্ধবিমানসহ হেলিকপ্টার ও অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র সংযোজনের কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী।

জাতিসংঘ শান্তি মিশনে কাজের মাধ‌্যমে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করায় সশস্ত্র বাহিনীর প্রশংসা করেন সরকার প্রধান। এর আগে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে শিখা অনির্বাণে ফুল দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সদস্যদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

  • কাগজ অনলাইন
Top