কউক’র প্রথম বোর্ড সভা : সমৃদ্ধ কক্সবাজার নির্মাণে মহাপরিকল্পনা দরকার

CoxDA-1st-Meeting-Pic_1.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক)’র চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহম্মদ বলেছেন, কক্সবাজারকে সমৃদ্ধ করে দেশকে এগিয়ে নিতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠন করেছেন। তাঁর বদান্যতায় কলি হিসেবে উঁকি মারছে প্রতিষ্টানটি। একে কলিতেই নষ্ট না করে যথাযথ ভাবে ফুটতে সবার সহযোগিতা দরকার। একটি মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করে পরিকল্পিত ভাবেই কক্সবাজারের উন্নয়ন তরান্বিত করা সম্ভব। প্রথম সভায় এসিদ্ধান্তই নেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত কউকের প্রথম বোর্ড সভা শেষে প্রেস ব্রিফিংকালে কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।

চেয়ারম্যান জানান, কর্তৃপক্ষের আইনানুসারে ত্রয় মাসিক প্রথম সভায় প্রতিষ্টানের অর্গানোগ্রাম নির্ধারণে জোর দেয়া হয়েছে। সকল সদস্যের ইচ্ছে স্বচ্ছভাবে পরিকল্পিত ও নন্দিত কক্সবাজার বিনির্মাণ। এজন্য একটি মাস্টার প্লান দরকার। মাস্টার প্লান এগিয়ে নিতে হলে দরকার জনবল ও অর্থ। আগামী একবছরের জন্য একটি থোক বরাদ্দ নিয়ে কাজ এগুতে সবায় সম্মত হয়েছে। সবায় উঠে আসা গঠনমূলক আলোচনার সিদ্ধান্তগুলো যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে উপস্থাপন করা হবে। পরবর্তি নির্দেশনা এলে দ্রুত এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা থাকবে।

উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠনের আগে ২০১১ সালে কক্সবাজারকে নিয়ে জেলা প্রশাসনের তৈরী মহাপরিকল্পনার কি হবে জানতে চাইলে কউক চেয়ারম্যান বলেন, ঐ পরিকল্পনা পর্যালোচনার পর যুগোপযোগী করে প্রাকৃতিক পরিবেশ অক্ষুন্ন রেখেই উন্নয়ন কার্যক্রম এগিয়ে নেয়া হবে।

coxda-1st-meeting-pic-2_1কক্সবাজার বিএমএ ভবনে কউকের অস্থায়ী কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে বেলা ১১টায় শুরু হওয়া সভা বিকাল ৩টা পর্যন্ত চলমান সভা শেষে চেয়ারম্যান আরো জানান, কক্সবাজার শহর, মহেশখালী, টেকনাফ, সেন্টমার্টিন, চকরিয়ার বঙ্গবন্ধু সাফারিপার্কসহ পর্যটন সম্ভাবনাময় সকল এলাকা কউক’র আওতাধীন। শুরুতে কক্সবাজার শহর এলাকাকে প্রায়োরিটি দিয়ে করা হবে ধীরে ধীরে সব স্থানের উন্নয়ন। এটি তরান্বিত করতে কউকের সহযোগি হিসেবে জেলা প্রশাসন, পৌরসভা ও অন্যপ্রতিষ্টানের সমান্বত প্রচেষ্টা কামনা করেন তিনি।

সভায় পরিবশে ও বন মন্ত্রনালয়ের উপসচিব মুহাম্মদ শুক্কুর আলী, ভূমি মন্ত্রনালয়ের উপসচিব শোয়াইব আহমদ খান, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রনালয়ের উপসচিব মাহবুবুর রহমান ভূঁঞা, কউক’র সদস্য প্রকৌশলী বদিউল আলম, অ্যাড. প্রতিভা দাশ, ডা. সাইফুদ্দিন ফরাজী, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আলপনা চাকমা, লে. কর্ণেল আনোয়ার হোসেন, পৌর মেয়র মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী নুরুল আমিন মিয়া, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মিহির চক্রবর্তী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম, এসপি’র প্রতিনিধি ওসি আসলাম হোসেন, কউক সচিব মো. আবদুস সোবহানসহ কমিটির ১৯ সদস্যের মাঝে ১৮ জন উপস্থিত ছিলেন। ###

Top