অংসান সুচির ইশারায় মুসলমানদের হত্যা করা হচ্ছে

Human_1.jpg

ইমাম খাইর, সিবিএন:
মিয়ানমারের প্রধানমন্ত্রী অংসান সুচির নগ্ন ইশারায় নির্বিচারে মুসলমানদের হত্যা করা হচ্ছে। জালিয়ে পুড়িয়ে ছারখার করা হচ্ছে মুসলমানদের বাড়ীঘর। তুলে নিয়ে ধর্ষণ করা হচ্ছে মুসলিম নারীদের। এরই মাধ্যমে মিয়ানমার সরকার ‘মুসলিম নিধন’ কর্মসুচি বাস্তবায়ন করছে। এজন্য দেশটির প্রধানমন্ত্রী অংসান সুচির বিচার হওয়া দরকার। বাংলাদেশের বৌদ্ধ রাখাইন সম্প্রদায় এ হত্যাকান্ডকে কিছুতেই মেনে নেবে না ।
মিয়ানমারে মুসলমানদের হত্যা-নির্যাতনের প্রতিবাদে কক্সবাজার হিন্দু বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন।
রবিবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্ত্বরে বিক্ষোভে বক্তারা আরো বলেন, মিয়ানমারের প্রধানমন্ত্রী অংসান সুচির শান্তিতে নোবেল কেড়ে নেওয়া উচিৎ। এ স্বীকৃতি তার জন্য মানায়নি।

বক্তাদের মতে, সুচি সরকার প্রধান হওয়ার পর থেকে দেশটিতে মুসলমানদের উপর অত্যাচার বেড়েছে। পাখি শিকারের মতো মানুষ হত্যা করা হচ্ছে। সরকার প্রধানের নগ্ন ইশারায় মিয়ানমার সামরিক জান্তা বাহিনীর বর্বর ঘটনাবলী ঘটাচ্ছে। তাদের এ আচরণ বিশ্ব বিবেককে হতবাক করেছে।
মিয়ানমারের বৌদ্ধদের উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, আপনারা শান্তির কথা বলে বিশ্বে অশান্তি তৈরী করেছেন। মানবতা হত্যা করে চলেছেন। আমরা সাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়েছি। আপনারা অশান্তির মিয়ানমার গড়ছেন। আপনাদের এমন আচরণ পুরো বিশ্বে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতীতি আঘাতপ্রাপ্ত। শান্তিকে অগ্নিকুন্ডে নিক্ষেপ করেছেন।
athin-rakhaingমনে রাখবেন, আপনাদের শক্তি এতে শেষ নয়। আপনাদের উপর আরো বড় শক্তি আছে। মানবতাকে এভাবে হত্যা করার দায় আপনারা এড়াতে পারেননা। একদিন বিচারের মুখোমুখি হতে হবে আপনাদের।
কক্সবাজারের সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা এথিন রাখইনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা অওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, কক্সবাজার সিটি কলেজের অধ্যক্ষ ক্যথিং অং, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এডভোকেট রনজিত দাশ প্রমুখ।
rakhaing-protest-againest-myanmar-killing-of-rohingya-muslimজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বাবুল শর্মার পরিচালনায় সভায় আশেক উল্লাহ রফিক এমপি, অধ্যাপক প্রিয়তোষ শর্মা চন্দন, বৌদ্ধ সমিতির সভাপতি রবিন্দ্র বিজয় বড়ুয়াসহ বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীরা বক্তব্য রাখেন।
তারা সমাবেশ থেকে মিয়ানমারে অবিলম্বে হত্যাযজ্ঞ বন্ধ করে শান্তি অলোচনার আহবান জানান।
সভার সমাপনী বক্তব্যে অধ্যাপক এথিন রাখাইন যারা মানুষ হত্যা করে ইতিহাসে কালিমা লিখিয়েছে তাদের প্রতিরোধ করার আহবান জানান।
একই সঙ্গে ঘটনায় জতিড়দের বিচার দাবী করেন তিনি।

Top