প্র‌তিব‌ন্ধি আ‌রি‌ফের পা‌শে এএসআই ম‌হিউদ্দীন

14798206735951.jpg

মো: আশফাক উদ্দীন আরফাত:
দুই হাতের একটি আঙ্গুলও বাইরে নেই। বর্ধিত চামড়ায় ঢেকে গেছে পুরো দুই হাত। সর্বাঙ্গে কঠিন চর্মরোগ। পায়েরও একই অবস্থা। তাই পা চালানোর শক্তিও নেই। তবুও বাবা-মায়ের উৎসাহে নিজেকে শিক্ষিত করার সংগ্রাম চালাচ্ছে শিশু মো. আরিফুল ইসলাম (১২)।

২২ন‌ভেম্বর প্র‌তিব‌ন্ধি শিশু শিক্ষার্থী আ‌রিফ‌কে পরীক্ষা কে‌ন্দ্রে দেখা ক‌রেন এবং আ‌র্থিক সম্মাননা দেন ঈদগাঁও পু‌লিশ তদন্ত কে‌ন্দ্রের এএসআই ম‌হি উদ্দীন এবং সা‌থে উপ‌স্থিত ছি‌লেন এএসআই শাহজালাল, শিশুর মা দিলদার বেগম, ঈদগাহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যাল‌য়ের প্রধান শি‌ক্ষিকা খুরশিদুল জান্নাত, কেন্দ্র প‌রিদর্শক মো: শাহ আলম, সাউথ বাংলা নিউজ ২৪ ডটকম এর বার্তা সম্পাদক আশফাক উদ্দীন আরফাত এবং সাংবা‌দিক না‌ছির উদ্দীন পিন্টু।

এবারের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিএসসি) পরীক্ষায় কক্সবাজারের ঈদগাঁও আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে (কক্সবাজার সদর-৬) অংশ নিয়ে দুই হাতের কব্জি দিয়েই লিখছে শারিরীক প্রতিবন্ধী আরিফ। তার রোল-২০৯১।

আরিফ সদর উপজেলার জালালাবাদ ইউনিয়নের দক্ষিণ লরাবাগ জমিরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। মা দিলদার বেগমের কোলে চড়েই পরীক্ষা কেন্দ্রে আসছে আরিফুল।

কিন্তু দর্জিকাজ করে সংসার চালানো দলিলুর রহমানের পক্ষে ছেলে আরিফের জন্য একসঙ্গে এতো টাকা খরচ করার মতো সামর্থ্য নেই। তাই আর আরিফের চিকিৎসা করানো হয়ে উঠেনি। তখন থেকেই চলাচলের জন্য মায়ের কোলই তার অবলম্বন।

এএসআই ম‌হি উদ্দীন প্র‌তি‌বেদক কে জানান, মা দিলদার বেগম কে আশ্বাস দেন ছেলে আ‌রি‌ফের চি‌কিৎসা বাবদ সাধ্যমত সহ‌যোগীতা করা হ‌বে ।

Top