নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের প্রস্তাব জামায়াতের

3ee555f3ef9b9e18ac3e2b8f98c7c62d-jamate-Islami_2.jpg

ডেস্ক নিউজ:

নতুনভাবে নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনের পরপরই জাতীয় ঐকমত্যের ভিত্তিতে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ বা নির্দলীয় কেয়ারটেকার সরকারের রূপরেখা তৈরির আহ্বান জানিয়েছে জামায়াতে ইসলামী। জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদ রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে এ আহ্বান জানিয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতি তিনি এ আহ্বান জানান।

জামায়াতের আমির বলেন, সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণের জন্য একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের করতে ঐকমত্যের ভিত্তিতে নিরপেক্ষ ইসি গঠনই যথেষ্ট নয়। অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচনের জাতিকে উপহার দিতে নির্বাচনকালীন একটি নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় সরকারের প্রয়োজন। এজন্য ইসি পুনর্গঠনের পরপর নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ বা নির্দলীয় কেয়ারটেকার সরকারের রূপরেখা তৈরি করতে হবে।

জামায়াতের প্রস্তাব অনুযায়ী, সংবিধানের ১১৮-১২৬ নং অনুচ্ছেদের আলোকে নিরপেক্ষ, যোগ্য ও দায়িত্ব পালনে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ একটি সিলেকশন কমিটি গঠন করা আবশ্যক। এ কমিটিতে দুজন দক্ষ নারী সদস্য নিয়োগের প্রস্তাব করেছে তারা। এছাড়া প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও চারজন নির্বাচন কমিশনার রাখা হবে।

প্রসঙ্গত, ১৯ ডিসেম্বর জামায়াতের আমির মকবুল সংলাপের সুযোগ চেয়ে রাষ্ট্রপতিকে একটি চিঠি দেন। চিঠি প্রসঙ্গে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছিলেন, তারা ১৯ ডিসেম্বরই জামায়াতের চিঠি পেয়েছেন। নির্বাচন কমিশনে (ইসি) নিবন্ধন স্থগিত থাকায় দলটিকে ডাকা হয়নি।

ওই চিঠিতে বলা হয় বলেন, ‘সব দলের অংশগ্রহণে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য নিরপেক্ষ ইসি গঠন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ইসি গঠনে সার্চ কমিটি নির্ধারণের লক্ষ্যে রাষ্ট্রের অভিভাবক হিসেবে আপনি সংলাপের যে মহান উদ্যোগ নিয়েছেন, জামায়াত তাকে স্বাগত জানায়। একইসঙ্গে আন্তরিকভাবে সফলতাও কামনা করে।’

Top