কারাগারে হাজতির মৃত্যু, তোপের মুখে আইনজীবি আলম

FFF-e1484104036873.jpg

চীফ রিপোর্টার, সিবিএন:

মো. সুলতান (৫০) নামে কক্সবাজার জেলা কারগারের এক হাজতির মৃত্যুর ঘটনায় তোপের মুখে পড়েছে কক্সবাজার বারের আইনজীবি ও খুরুস্কুলের বাসিন্দা এড. মো. আলম। তোপের মুখে পড়ে শেষ পর্যন্ত তিনি আত্মগোপনে চলে গেছেন।
জানা গেছে, ১০ জানুয়ারি কক্সবাজার জেলা কারাগারে মারা যাওয়া মো. সুলতান খুরুস্কুল ইউনিয়নের পালপাড়ার মৃত গুরামিয়ার পুত্র। তিনি বছর দেড়েক আগে গাঁজা নিয়ে আটক হলে ভ্রাম্যমান আদালত তাকে কারাদন্ড দেন। পরে তিনি আদালত থেকে জামিন নেন। তাকে জামিন নিয়েছিলেন খুরুস্কুল এলাকার আইনজীবি মো. আলম। এদিকে জামিনে বের হওয়ার পর হাজিরায় গরমিল হওয়ায় এক মাসে আদালত তাকে ফের জেল হাজতে পাঠান।
পরিবারের লোকজন জানান, জামিন নিয়ে জেল থেকে বের হওয়ার চার বার হাজিরা দিতে আদালতে যান মো. সুলতান। এই জন্য আইনজীবি মো. আলমের কাছে যাবতীয় খরচ পাতি দিয়ে দেন। কিন্তু এড. মো. আলম হাজিরা দেখাবেন বলে জানালে তা আর দেখাননি। পরে পঞ্চমবার হাজির হলে আদালত মো. সুলতানের জামিন বাতিল করে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।
জেল হাজতে গেলে দু:শ্চিন্তাসহ নানা কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েন মো. সুলতান। কারা হাসপাতালে দু’দিন চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে ১০ জানুয়ারি উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আনা হলে তাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।
মো. সুলতানের মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে তার স্বজনরা। ক্ষিপ্ত স্বজনরা গতকাল সকালে এড. মো. আলমের খোঁজে কক্সবাজার বারে তার কার্যালয়ে যান। কিন্তু টের পেয়ে আগেই সেখান থেকে সটকে পড়েন মো. আলম। মোবাইলও বন্ধ রাখেন। সারাদিনও তাকে তার অফিসে পাওয়া যায়নি।

Top